চট্টগ্রাম থেকেও আগামীতে কেউ নগর চাবি পাবে : সাকিব

বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০২-০৮-২০১৯ ০১:১৬:৫৫ am

দেশের প্রথম কোনো খেলোয়াড় হিসেবে চট্টগ্রাম নগরের ‘স্মারক চাবি’ হাতে নিয়ে বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান বলেছেন, ‘আজ এখানে যাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে আগামীতে তাদের (ক্ষুদে ক্রিকেটার) মাঝ থেকেও একজন বা কয়েকজন হয়তো এ নগর চাবি পাবে।’


মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার (সিজেকেএস) ক্রিকেট কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাকিব আল হাসানের হাতে সম্মানসূচক ‘নগর চাবি’ তুলে দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। পরে বক্তব্য দিতে গিয়ে চট্টগ্রামের ভবিষ্যৎ ক্রিকেটারদের নিয়ে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন সাকিব।


সাকিব আল হাসান বলেন, ‘চিটাগাং আমার কাছে প্রিয় একটা শহর। সেটা এখন থেকে না, যখন থেকে ন্যাশনাল টিমে খেলছি তখন থেকে। এটা আমার খুব কাছের একটা শহর। আর এমন একটা শহরে নাছির আঙ্কেল আমাকে যে সংবর্ধনাটা দিলো তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ।’


চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক আলী আব্বাসের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সাকিব বলেন, ‘সত্যি বলতে আর একজনকে ধন্যবাদ দিতে হয়, আমাদের আব্বাস ভাই। যার অক্লান্ত প্রচেষ্টায় এ প্রোগ্রামটা সফল হয়েছে। আমি যতবারই আসি এখানকার মেজবানের খাবার, চিটাগাংয়ের ট্রাডিশনাল খাবার খুবই পছন্দ। আব্বাস ভাই খুব ভালোভাবেই জানেন। মাঝে মাঝে 


‘এ দুটো মানুষকে আমি মন থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি একং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। তারা যেভাবে আমাকে সাপোর্ট করছে, আশা করি আপনারাও আমাকে সাপোর্ট এভাবে দেবেন, যেন আমি ভবিষ্যতে আরও এভাবে পারফর্ম করতে পারি। বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে পারি।


সংবর্ধনার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সাকিব বলেন, ‘পুরো চট্টগ্রামবাসীকে ধন্যবাদ জানাই। আমার কাছে মনে হয় এটা অন্য একটা জেলা বা অন্য একটা ডিভিশনকে ইন্সপায়ার করবে এভাবে প্লেয়ারদেরকে উদ্বুদ্ধ করতে, ভালো কিছু করার জন্য, এবং তারাও উৎসাহিত হবে।’


এক খুদে ক্রিকেটারের প্রশ্নে জবাবে সাকিব বলেন, ‘আমি তিন চার-মাস আগে থেকে নিজেকে প্রস্তুত করেছি। চ্যালেঞ্জ নিয়েছি। ওটা কাজে এসেছে। দেশের মানুষের সমর্থন ছিল, দোয়া ছিল। আর ভালো খেলতে হলে চাপকে জয় করে, খেলাকে উপভোগ করে পরিশ্রম এবং শৃঙ্খলাবদ্ধ থাকতে হবে। তোমাদের মধ্য থেকে ভালো ক্রিকেটার ওঠে আসবে।’


উপস্থিত এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘দুই ম্যাচ হেরেছে বলে সব শেষ, তা নয়। ক্রিকেটারদের পাশে থাকতে হবে। উৎসাহ দিয়ে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে গত পাঁচ বছর আমরা কি দিয়েছি।’


সবশেষে দোয়া চেয়ে সাকিব বলেন, ‘আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আমার সাথে দেখা করার জন্য আপনারা এ প্রোগ্রামে এসেছেন। ধন্যবাদ জানাই ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিককে। যারা কষ্ট করে এ প্রোগ্রামটা ধারণ করছেন। আমি আবারও বলবো আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য দোয়া করবেন।’


চসিক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক ও সিজেকেএস ক্রিকেট কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আলী আব্বাস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আবু হাসান সিদ্দিক, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী, সিজেকেএস সাধারণ সম্পাদক আলমগীর সিরাজ উদ্দীন, সদস্য আব্দুল হান্নান আকবর।


চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট তুলে দেন সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাউদ্দীন রেজা, সহ-সভাপতি মনজুর কাদের মনজু, যুগ্ম সম্পাদক নজরুল ইসলাম।


উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, নেছার উদ্দীন মঞ্জু, জোবাইদা নার্গিস খান এবং চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দৌহা।

আপনার মতামত লিখুন