প্রতিবন্ধী তরুণীকে দোকানে নিয়ে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ

বিশেষ সংবাদদাতা টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ১৮-০৭-২০১৯ ০১:৫১:৩৮ pm

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এক প্রতিবন্ধী তরুণীকে পালাক্রমে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের পিচুটিয়া বাজারের একটি দোকানে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি জানার পর স্থানীয়রা ক্ষিপ্ত হয়ে ওই দোকানে তালা লাগিয়ে দেয়। গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে পুলিশ এ ঘটনায় অভিযুক্ত আনিছকে গ্রেফতার করেছে।


এ ঘটনায় ওই প্রতিবন্ধীর চাচাতো ভাই মুক্তিযোদ্ধা মোসফিকুর রহমান বাদী হয়ে কুরুয়া গ্রমের রইজ উদ্দিনের ছেলে রাজিব (৩০) ও পিচুরিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল বাছেদের ছেলে আনিছকে (৫২) আসামি করে কালিহাতী থানায় মামলা করেন।


সোমবার ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (কালিহাতী অঞ্চল) মেয়েটির ২২ ধারায় জবানবন্দির নেয়া হয়। আদালতের বিচারক আমিনুল ইসলাম জবানবন্দি গ্রহণ করেন।


মামলার বাদী মুক্তিযোদ্ধা মোসফিকুর রহমান বলেন, আমার মানসিক প্রতিবন্ধী বোন বাড়িতে কাউকে না জানিয়ে বের হয়ে যায়। গত ১২ জুন (বুধবার) রাতে রাজিব ও আনিছ আমার মানসিক প্রতিবন্ধী বোনকে সদাই দেয়ার প্রলোভনে রাজিবের দোকানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে।


স্থানীয়রা জানান, রাজিব ও আনিছ ওই প্রতিবন্ধীকে প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে রাজিবের দোকানে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। পরে স্থানীয় মাতাব্বররা ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর থেকে অভিযুক্ত রাজিব ও আনিছ পলাতক ছিল।


এ বিষয়ে কালিহাতী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন বলেন, ১৫ জুন (শনিবার) বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয় এবং ওই প্রতিবন্ধীর অভিভাবককে থানায় আসতে বলা হয়। রোববার দুপুরে ওই প্রতিবন্ধীর কোনো ভাই-বোন, মা-বাবা না থাকায় চাচাতো ভাই মোসফিকুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। আমরা অভিযুক্ত আনিছকে গ্রেফতার করেছি। অপর অভিযুক্ত রাজিব পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন